ঈদের নামাজ সেরে রথের রশিতে টান দিলেন। এরপর কি হল ? ক্লিক করে দেখুন ভিডিও-

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, পূর্ব বর্ধমানঃ  এ এক  অন্য রথের গল্প। যেখানে  ঈদের নামাজ সেরে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরা টানলেন হিন্দু দেবতার রথ। হিন্দু সম্প্রদায়ের সঙ্গে  হাত লাগালেন রথের রশিতে। পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের সেলিমাবাদে এমনই এক সম্প্রীতির রথ উৎসব পালিত হল।

 প্রায় শতাধিক বছরের পুরনো এই রীতি।  তিথি  মেনে রথযাত্রার পরের দিন এখানে  রথ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে । এদিন  হিন্দু  ও মুসলমান সম্প্রদায়ের মানুষরা এক সাথে রথের রসিতে টান দেন। তবে জগন্নাথ বলরাম সুভদ্রার পরিবর্তে রথে থাকেন  গোপাল জিউ। ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা ভুলে সেলিমাবাদ গ্রামের এই রথ যাত্রা সম্প্রীতির এক অন্যন্য নিদর্শন। এই গ্রামে হিন্দু মুসলিম পাশাপাশি সহাবস্থান। গ্রামের মধ্যস্থলে রয়েছে প্রাচীন গোপাল জিউর মন্দির। জানা যায়, এই গ্রামের বৈষ্ণব সাধক দ্বিজবর দাস বৈরাগ্য নিজের বাড়িতেই মন্দির প্রতিষ্ঠা করে রাধাকৃষ্ণ ও গোপাল  মূর্তির পুজো পাঠ শুরু করেন। সেই সময় থেকেই রথ যাত্রার পরের দিন রথে  চাপিয়ে দেবতাদের বার করা হতো। তখন থেকেই হিন্দু মুসলমান একসাথে রথ টানত। সেই প্রথা এখনো চলছে।  এদিন দুই সম্প্রদায়ের প্রায় হাজার খানেক মানুষ এই উৎসবে সামিল হন। এলাকা জুড়ে বিশাল মেলা বসে।
সম্প্রীতির সেই বিরল নজিরের ভিডিও-