এ যেন সিনেমার গল্প। ১০ বছর পর হারানো মেয়ে বাড়ি ফিরে এলো। বর্ধমানের অবিশ্বাস্য সেই কাহিনী ক্লিক করে পড়ুন

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, খন্ডঘোষঃ  দশ বছর পর ঘরে ফিরলো মেয়ে। বর্ধমানের খন্ডঘোষের কামদেবপুর গ্রামের বাসিন্দা আমিনা। তখন তার বয়স বারো। মাসির বাড়ি যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়ে যায়। তার পর থেকে তার আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। দশ বছর পর উত্তরপ্রদেশের সালানপুর থানার পুলিশ বর্ধমানের খন্ডঘোষ থানার মাধ্যমে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়।

পাঁচ বোন ও এক ভাইয়ের মধ্যে আমিনা ছোট। অল্প বয়সেই বাবাকে হারায়। মা বাড়ি বাড়ি পরিচারিকার কাজ করে। জানা গেছে, আমিনার বয়স তখন ১২ বছর। হটাৎ একদিন  মাসির বাড়ি যাওয়ার জন্য সে একাই বাড়ি থেকে বের হয়। সেই সময় তার মা সাহানা বিবি তার হাতে দশ টাকা দেয়। তারপর তার আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। আমিনা জানায়, বর্ধমান স্টেশন থেকে ট্রেনে ওঠে সে। তারপর উত্তরপ্রদেশে কোনও এক স্টেশনে পৌঁছয়। রেলপুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এবং ভাষা বুঝতে না পেরে মানসিক রোগী ভেবে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে মাঝের সময়টা তার কিভাবে কেটেছে তা জানা যায়নি। জানা গেছে, কিছুদিন আগে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মেয়েটির কাছে তার বাড়ির ঠিকানা জেনে সালানপুর থানার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে সম্পূর্ণ ঘটনা জানায়। এদিন উত্তরপ্রদেশের সালানপুর থানার পুলিশ বর্ধমানের খন্ডঘোষ থানার মাধ্যমে আমিনার পরিবারের হাতে তুলে দেয়। সিনেমার গল্পের মতই এতদিন পর হারানো মেয়েকে ফিরে পেয়ে খুশি পরিবার। খুশি এলাকার মানুষ।

প্রতি মুহূর্তে ‘হাইলাইস বেঙ্গল’ এর নিউজ আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ Like  করুন।