‘কৃষক ছাড়া কারও প্রবেশ নিষেধ’ এই হোডিং আজ সিঙ্গুরের গেটে। পড়ুন-

নিউজ ডেস্কঃ  এক ইতিহাস। ইতিহাস গড়লেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ আরো একবার প্রমান করলেন তিনি যা কথা দেন, সেই কথা রাখেন। দশ বছর আগে সিঙ্গুরের জমিতে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, জোর করে এই কৃষি জমিতে শিল্প গড়তে দেবেন না।  বৃহস্পতিবার সেই মাঠেই সর্ষে বীজ ছড়ালেন নিজের হাতে। শুরু করলেন কৃষিকাজের । মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে গোপালনগর মৌজা থেকে শুরু হল কৃষকদের জমি ফেরানোর কাজ ৷ পাশাপাশি কৃষকদের হাতে তুলে দেওয়া হল  বিভিন্ন ফসলের বীজ । শুরু হল কৃষি আন্দোলনের নতুন অধ্যায়। আজ এই ঐতিহাসিক অনুষ্ঠানের গেটে লাগানো ছিল হোডিং। তাতে লেখা ছিল ‘কৃষক ছাড়া কারও প্রবেশ নিষেধ’। সত্যিইতো আজকের দিনটা তো কৃষকদেরই।

img-20161020-wa0005
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সর্ষে বীজ ছড়ালেন নিজের হাতে।

সকাল থেকেই সিঙ্গুরের গোপালনগর, বাজেমেলিয়া, ঘাসেরভেড়ি সহ সর্বত্রই ছিল উৎসবের  পরিবেশ। মুখ্যমন্ত্রী দুপুরে গাড়ি থেকে নেমে আলপথ দিয়ে পায়ে হেঁটে গেলেন মাঠের মাঝখানে ৷ ছড়িয়ে দিলেন সর্ষের বীজ ৷ উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের একাধিক মন্ত্রী ৷ গত ৩১ আগস্ট সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছিল সিঙ্গুরের জমি ফেরাতে হবে কৃষকদের। তারপর যুদ্ধকালীন তৎপরতায় শুরু হয়েছিল তার প্রস্তুতি। টাটাদের তৈরি নির্মাণ গুলি ভাঙা, জমিকে পুনরায় চাষযোগ্য করে তোলা- সবই শেষ করলেন নির্দিষ্ট সময়ে। আজ মাঠে নেমে সেই জয় উৎসর্গ করেছেন  কৃষকদেরই ৷ আর করবেন নাই বা কেন?  তিনি তো বাংলার মানুষের মমতা ।