মনোষ্কামনা পূর্ণ করেন টিয়ার ‘বড় কালি’। রয়েছে আরো কাহিনী। ক্লিক করে পড়ুন

 নিউজ ডেস্কঃ  প্রায় ২৫০ বছর আগে স্বপ্নাদেশে  দেবীর পুজো শুরু মুর্শিদাবাদের টিয়া গ্রামে দে বাড়ির বড় কালির। পুজো ঘিরে এলাকায় কয়েক হাজার মানুষের ঢল নামে। পুজোর দুদিন এই গ্রাম যেন হয়ে ওঠে সব মানুষের মিলন ক্ষেত্র। এই পুজো ঘিরে রয়েছে নানা কাহিনী।

কথিত আছে, প্রায় ২৫০ বছর আগে টিয়া গ্রামে দে পরিবারের এক সদস্য গঙ্গার ধারে নিজেই মাটির ছোট প্রতিমা গড়ে পুজো করতেন। তার আর্থিক অবস্থা ভালো ছিলো না। বাসন ফেরি করে সংসার চালাতেন। তবে কষ্ট করে হলেও পুজো বন্ধ করেননি। শোনা যায়, তিনি দেবীর স্বপ্নাদেশ পান। বড় প্রতিমা গড়ে  তাকে গ্রামের তিন মাথার মোড়ে পুজো করতে। সেই বছর তিনি বড় করে পুজোর আয়োজন করেন। নিজের সামর্থ্য না থাকলেও দেবীর আশীর্বাদে সমস্ত জোগাড় হয়ে যায়। দেবীর মাহাত্ব ছড়িয়ে পড়ে চারিদিকে। তারপর থেকে সেই পুজো চলতে থাকে গ্রামের তিন মাথার মোড়ে। অন্যদিকে ওই ব্যাক্তির আর্থিক উন্নতিও হতে থেকে। মানুষের বিশ্বাস বড় কালিকে ভক্তি ভরে ডাকলে ভক্তের মনোবাঞ্ছা পূর্ণ করেন। অনেকে মানত করে দেবীকে সোনা ও রুপোর অলঙ্কার দেন। বিসর্জনের সময় সেই অলঙ্কার পরিয়ে দেবীকে সারা গ্রাম ঘোরানো হয়। পরিবারের বর্তমান সদস্য পেশায় শিক্ষক সহদেব দে জানিয়েছেন, দেবী গ্রাম ঘোরার সময় কোন অলঙ্কার পড়ে গেলে তা কেউ কুড়িয়ে পেলে দেবীর মন্দিরে ফেরৎ দিয়ে যান। এক সময় দেবীর মন্দির ছিল মাটির, টিনের চালা। এখন সিমেন্টের পাকা মন্দির।  প্রতি বছর দূর দুরান্ত থেকে হাজার হাজার মানুষ আসেন পুজো দেখতে।

*** ‘হাইলাইস বেঙ্গলএর নিউজ আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ Like  করুন।

আরও  খবর  দেখতে  google গিয়ে ক্লিক করুন-  www.highlightsbengal.com     

আপনি কি কবিতা বা গল্প লেখেন? পাঠান আমাদের। ‘হাইলাইস বেঙ্গল’’ এর বিশেষ বিভাগ ‘আপনার লেখা’ তে প্রকাশিত হবে। আপনার লেখা পৌঁছে যাবে বিশ্বের দরবারে। লেখা পাঠান এই ই-মেলে- highlightsbengal.news@gmail.com

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের সেরা মাধ্যম ‘হাইলাইস বেঙ্গল’ বিজ্ঞাপনের জন্য  ফোন করুন- ৯৯৩৩১০৬৯০৪, ৭৯০৮০০২২৪৮