এক সাথে ১৬ জন পাত্রীর বিয়ে দেখতে দশ হাজার মানুষের ভিড়।

মুখ্যমন্ত্রীর  দেখানো পথেই হাঁটলেন। ইচ্ছা থাকলে যে ভালো কাজ করা যায় তা দেখিয়ে দিলেন এক তৃনমূল কাউন্সিলর। মাত্র দিন কয়েকের উদ্যোগে ষোল জোড়া পাত্রপাত্রীর চার হাত এক করলেন। বর্ধমানের কঙ্কালেশ্বরী কালী মন্দিরে বসলো বিবাহের আসর।

বর্ধমান পৌরসভার কাউন্সিলর খোকন দাসের উদ্যোগে এদিন রীতিমত সাজোসাজো রব কাঞ্চননগরে।  গরীব পরিবারের পক্ষ থেকে জমা পড়া আবেদনের ভিত্তিতে ষোল জন কন্যার বিবাহের আয়োজন করা হয় মন্দির প্রাঙ্গনে। প্রায় দশ হাজার অতিথি সমাগমে সম্পন্ন হল বিবাহ অনুষ্ঠান।  সঙ্গে ছিল প্রীতিভোজের আয়োজন। উপস্থিত ছিলেন প্রশাসনের কর্তা ব্যাক্তিরা।

আয়োজনের কোন ত্রুটি ছিল না। পাত্রপাত্রীকে উপহার হিসাবে দেওয়া হয়, খাট বিছানা,আলমারী, সোনার আংটি, সেলাই মেশিন ও সাইকেল। সঙ্গে এক মাসের রান্নার সামগ্রী। পাত্রদের কল্পতরু মাঠ থেকে সুসজ্জিত টোটোতে চাপিয়ে কঙ্কালেশ্বরী কালী মন্দিরে নিয়ে আসা হয়। এলাকার মহিলারা তাদের বরন করে বিয়ের আসরে নিয়ে আসে। এরপর পুরোহিতের মন্ত্র পাঠের মাধ্যমে মালা বদল থেকে সিঁদুর দান সব কিছুই সম্পন্ন হয়। নবদম্পতিকে আশীর্বাদ করেন উপস্থিত অথিতিরা।

প্রতি মুহূর্তে ‘হাইলাইস বেঙ্গল’ এর নিউজ আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ Like  করুন।

h 2222