বর্ধমানে ঘোড়া অ্যাম্বুলেন্স। মানুষের সেবায় অভিনব উদ্যোগ এই ব্যাক্তির। ক্লিক করে দেখুন

কৌশিক দত্তঃ    সখের দাম লাখ টাকা। আর এই সখ যদি হয় ঘোড়া তাহলে? হ্যাঁ। ছোট থেকেই সখ ছিল ঘোড়ায় চাপা। তাই এখন তার সর্বক্ষণের সঙ্গী একটি  ঘোড়া।  সখ করে নাম রেখেছেন রাজা।  রাজাই তার বন্ধু।  বাজার হাট থেকে শুরু করে আত্মীয়র বাড়ী যাওয়া সব কিছুর সঙ্গীই তার এই আদরের রাজা। শুধু তাই নয়,  রাত বিরেতে গ্রামের কেউ অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতাল পৌছনোর জন্য রাজাকে নিয়ে হাজির হয় তিনি।

*** ‘হাইলাইস বেঙ্গলএর নিউজ আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ Like  করুন।

বর্ধমানের কেতুগ্রামের রাজখাড়া গ্রামের  বাসিন্দা জামাল শেখ। ছোট থেকেই সখ ছিল ঘোড়ায় চাপা।  কিন্তু টাকার অভাবে কিনতে পারেননি। সখ মেটালেন শ্বশুর মশাই। বিয়েতে যৌতুক হিসাবে ঘোড়া উপহার দিলেন জামাইকে। আর
তখন থেকেই ঘোড়াকে কাছ ছাড়া করেননি বর্ধমানের কেতুগ্রামের রাজখাড়া গ্রামের জামাল শেখ। বাজার হাট করা থেকে দূরদূরান্তে আত্মীয়স্বজনের বাড়ী যাওয়া সবকিছুর বাহন এই ঘোড়া। সখ করে নাম রেখেছিলেন রাজা। তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছিল তার মানুষের জন্য সেবা করা।  রাত বিরেতে গ্রামের কেউ অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতাল পৌছনোর জন্য জামাল শেখ হাজির হয় রাজাকে নিয়ে। ঘোড়ার পিঠে চাপিয়ে ওই অসুস্থ মানুষকে নিয়ে  যাওয়া হয় হাসপাতালে । কিন্তু বছর কয়েক আগে ঘোড়াটি মারা যায়। ঘোড়াকে ছাড়া এক মুহূর্ত চলছিল না জামাল শেখের। তাই চাষবাস করে নিজের জমানো  টাকা দিয়ে কিনেও ফেললেন নতুন একটি ঘোড়া। তারও নাম রাখলেন রাজা। নিজে আর্থিক সমস্যায় থাকলেও রাজাকে যত্ন আত্তির কোন ত্রুটি রাখেন না। প্রতিদিন প্রায় ১০০ টাকা খরচ করেন রাজার জন্য। এই বয়সেও রাজাকে নিয়ে পাড়ার ছেলেদের সঙ্গে বাইক রেস করে পাঙ্গা নেন। বয়স ৭০ পেরিয়েছে। তাতে কি!  এখনো এই রাজাকে নিয়েই ছুটে চলেছেন এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে।

আরও খবর দেখতে google গিয়ে ক্লিক করুন-  www.highlightsbengal.com

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের সেরা মাধ্যম ‘হাইলাইস বেঙ্গল’ বিজ্ঞাপনের জন্য  ফোনে করুন- ৯৯৩৩১০৬৯০৪, ৭৯০৮০০২২৪৮