বর্ধমানের এই কুলীন ব্রাহ্মণ মুসলিমদের জন্য যা করলেন তা দৃষ্টান্ত। ক্লিক করে দেখুন।

হিন্দু ব্রাহ্মণ পরিবারের সন্তান হয়েও নিজের ১ একর ৬ শতক জমি মুসলিমদের কবরস্থানের জন্য দান। সম্প্রীতির অনন্য নজির গড়লেন পূর্ব বর্ধমানের তালিত গ্রামের কালীকৃষ্ণ মুখোপাধ্যায়।

চরম অস্থিরতার সময় যেন ত্রাতা তিনি। ৮৮ বছরের অবসরপ্রাপ্ত এই সরকারি কর্মচারী বুঝিয়ে দিলেন, সবার উপরে মানুষ সত্য।

এই গ্রামে বরাবরই হিন্দু-মুসলিম সহাবস্থান। মুসলিম অধ্যুষিত পূর্ব ও দক্ষিণ পাড়ায় মৃতদেহ সমাধিস্থ করার দেওয়ার জায়গা ছিলনা।করব দিতে যেতে হত অনেক দূরে। দুইপাড়ার মাঝে জমি ছিল গ্রামের ডাঙ্গাপাড়ার বাসিন্দা
কালীকৃষ্ণ মুখোপাধ্যায়ের। তিনি নিজেই সিদ্ধান্ত নেন মুসলিমদের কবরস্থান হিসেবে এই জায়গা তিনি দান করবেন যাতে তাদের সুবিধা হয়। সেইমতো ১ একর ৬ শতক জায়গায় লিখিতভাবে কবর স্থান হিসেবে দান করেন। এখন এখানে মুসলিম মৃতদেহ কবর দেওয়া হয়। এই জায়গাতেই নামাজ পড়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

কালীকৃষ্ণবাবু বলেন, গ্রামের সরিফুদ্দিন, সেখ সাবেদ আলিরা কবর স্থানের জমি নিয়ে সমস্যার কথা তাকে জানান। তখনই সিদ্ধান্ত নেন কবরস্থানের জন্য জমি দান করবেন।

শুধু তাই নয়। গ্রামের পূর্ব ও দক্ষিণ পাড়ার মাঝে একটি রাস্তা করার জন্যও জমি দিয়েছেন কালীকৃষ্ণবাবু‌ ।

 

তবে দাদুর এই কাজে ভীষণ খুশি কালীকৃষ্ণবাবুর নাতি সাহেব মুখোপাধ্যায় সহ পরিবারের সকলে। সাহেব বলেন, দাদুর এইকাজ দৃষ্টান্ত। তার জন্য আমরা গর্ব অনুভব করি।

স্থানীয় মসজিদের কর্মকর্তা সেখ সরিফউদ্দিন জানিয়েছেন, কালীকৃষ্ণ বাবু উদার মনের মানুষ। এরকম মানুষ হয়না। গ্রামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সবসময় বজায় থাকে।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই চরম অস্থিরতার সময় পূর্ব বর্ধমানের তালিত গ্রাম দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে কালীকৃষ্ণ বাবুর  এই কাজের জন্য।