বর্ধমানের বিস্ফোরণের ঘটনায় পরিবার জানালো আসল ঘটনা। ক্লিক করে দেখুন ভিডিও।

ওয়েব ডেস্ক : মাটি নিয়ে খেলতে ভালোবাসতো সাত বছরের আফরোজ। মায়ের কাছ থেকে একটি গামলা নিয়ে বের হয়েছিল। বলেছিল মাটি নিয়ে আসবে। বাড়ির সামনেই মাটি আনতে গিয়েই সেখানে রাখা বোম থেকে বিস্ফোরণ ‌।এমনটাই জানালেন মা সোনিয়া খাতুন। তিনি বলেন পাড়ার এই ক্লাবের বদনাম করার জন্য কেউ ক্লাবের সামনে বোম রেখে দিয়েছিল। আর যা বল ভেবে খেলতে গিয়েই তার ছেলে অকালেই চলে গেল। ছেলের মৃত্যুর শোক কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে মাকে। বারবার দাবি জানাচ্ছেন বিচার চাই। দোষীদের শাস্তি হোক। তিনি আরো বলেন, এখানে প্রায়শই পার্টি নিয়ে ঝামেলা হয়। তবে সেই ঝামেলায়ই তারা থাকেন না।

অন্যদিকে ঘটনায় জখম শিশুর আত্মীয় জুলি খাতুন জানিয়েছে, ক্লাবের উল্টোদিকে একটি সেলুনের গায়ে ঘেরা জায়গায় ছোট ঝাউ গাছ ছিল। সেই উঁচু জায়গায় উঠে তার পাশে মাটি খুড়তে গিয়ে ছোট মাটির হাড়ি দেখতে পায় আফরোজ। সেই বোম করে কোনভাবে তার হাত থেকে পড়ে গিয়ে ঘটে বিস্ফোরণ।

এদিন ঘটনাস্থলে আসে সিআইডির একটি টিম। তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

নমুনা সংগ্রহ করার জন্য আসে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। এদিন দুই সদস্যের এই টিম ঘটনাস্থলে আসে তারা ওই এলাকা থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন।

তারা জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের সমস্ত রকম নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। বোম এ মেটালিক এবং স্টোন দু’ধরনের মেটেরিয়াল ছিল বলে তারা জানিয়েছেন। সেই নমুনা তারা ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করেন। যে জায়গায় বোমা ফাটে ও নমুনা নেওয়া হয় , নেওয়া হয় রক্তের নমুনা। কতগুলি বোম ফাটে সে ব্যাপারে কিছুই জানাননি তারা।

এটি মৃত শিশুর পরিবারের সাথে দেখা করতে আসেন রাজ্য মহিলা কমিশন এর চেয়ারপারসন অনন্যা চক্রবর্তী। তিনিও ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। এবং গোটা এলাকা ছিল থমথমে, বেশিরভাগ দোকানপাট ছিল বন্ধ। ছিল পুলিশ মোতায়েন।

দেখুন ঘটনার আপডেট ভিডিও