গুজরাট থেকে পায়ে হেঁটে দক্ষিণ দিনাজপুর। অবশেষে বাড়ি ফেরা। এই বৃদ্ধর কঠিন লড়াইয়ের কাহিনী ক্লিক করে পড়ুন

নিজস্ব প্রতিনিধি,দক্ষিণ দিনাজপুর     না ১কিমি ২ কিমি কিংবা ১০ কিমি নয়, কয়েকশো মাইল হাঁটা। আর হেঁটে অবশেষে প্রায় তিন বছর পর বাড়ি ফিরলেন। আহমেদাবাদ থেকে সম্পূর্ণ পায়ে হেঁটে পৌঁছলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বোল্লা গ্রামে। দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট থানার ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা অনিল মান্ডি।

বছর ৬০ এর এই ব্যাক্তি পেশায় দিনমজুর। প্রায় তিন বছর আগে শ্রমিকের কাজ করতে গুজরাট গিয়েছিলেন। সেখানে ফেরার সময় আহমেদাবাদ স্টেশনে ট্রেন থেকে কোনও কারনে নামলে তারপর থেকে আর কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি। থানায় অভিযোগও জানানো হয়।

জানা গেছে, সেইদিন স্টেশনে নামলে ট্রেন ছেড়ে দেয়। হাতে টাকা না থাকায় বিভিন্ন হোটেলে বাসন মাজার কাজ করে টাকা জমায় বাড়ি ফেরার জন্য। কিন্তু স্টেশনে ট্রেন ধরতে এলে সেই টাকা লুট হয়ে যায়। অবশেষে শুরু করেন হাঁটা। ভিক্ষা করে খেতেন। ক্লান্ত হয়ে পড়লে রাস্তায় ধারে কিংবা গাছের তলায় শুয়ে কাটাতেন। আহমেদাবাদ থেকে অবশেষে দক্ষিণ দিনাজপুরের বোল্লা গ্রামে হেঁটেই আসেন তিনি। এদিন হাঁটতে হাঁটতে অসুস্থ হয়ে রাস্তায় পড়ে থাকেন। বোল্লা গ্রামের মেলায় এসে দাদাকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে তার বোন। এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে বাড়ি ফিরিয়ে আনা হয়। বাড়ি ফিরতে ফেরে খুব খুশী সে। খুশী তার পরিবার।

***প্রতি মুহূর্তে ‘হাইলাইস বেঙ্গল’ এর নিউজ আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজ Like  করুন।